১০ টাকার চাল না পেয়ে ইউএনও কার্যালয়ের সামনে কার্ডধারীদের বিক্ষোভ

তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ১০ টাকা কেজি দরে চালের কার্ডধারীরা মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইউএনও ও বামনী ইউপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছেন। এতোদিন ১০ টাকা কেজি দরের চালের কার্ডধারীরা চাল পেলেও অদৃশ্য কারণে চলতি সেপ্টেম্বর মাসের চাল পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তাদের অভিযোগ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ট্যাগ অফিসার, মাঠ কর্মী ও ডিলারদের কারসাজিতে তাদের চাল দেওয়া হয়নি। অসহায় আবুল কাশেম, তৌহিদ, মোঃ মুরাদ, আকলিমা ও মনোয়ারাসহ কয়েকজন জানান, গত ৪ বছর ধরে বছরে দুইবার ১০ টাকা করে ৩০ কেজি চাল পেয়ে আসছিলাম। মঙ্গলবার সকালে বাংলাবাজার এলাকায় চালের ডিলার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উল্যার কাছে গেছে তিনি আমাদের কার্ড বাতিল করা হয়েছে বলে ১৬৬ জনকে বিদায় করে দেন। একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্পের মাঠকর্মী রিংকন সরজমিন না গিয়ে ইউনিয়নের একটি ঘরে বসে মনগড়া তালিকা করে আমাদের নাম বাদ দিয়েছে। তাই সবাই ইউএনও্#৩৯;র কাছে অভিযোগ করেছি। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানিয়েছেন। বামনী ইউপি চেয়ারম্যান তাফাজ্জল হোসেন জানান, এ প্রকল্পটি গত চার বছর ধরে চলমান। এ সময়ের মধ্যে যাদের অবস্থার উন্নতি হয়েছে তাদের নাম কর্তন করে নতুন করে অসহায় ব্যক্তিদের নামে কার্ড বরাদ্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমার সাথে সমন্বয় ছাড়াই-ইউএনও এবং ট্যাগ অফিসার তাদের লোকদের দিয়ে তালিকা সংযোজন-বিয়োজন করেছেন। ৫২৪টির মধ্যে ১৬৬টি নতুন কার্ড ইস্যু করা হয়েছে। বামনী ইউনিয়নের ট্যাগ অফিসার যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সালেহ আহাম্মদ জানান, সরকারি লোকদের দিয়ে তদন্ত করে যাচাই-বাছাই করে অসচ্ছল পরিবারকে কার্ড দেয়া হয়েছে। যিনি তদন্ত করেছেন (মাঠ কর্মী) তার পরিবারের তিনটি কার্ডই বাতিল করা হয়েছে। রায়পুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাবরিন চৌধুরী বলেন, সকল ইউনিয়নে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের দিয়ে যাচাই-বাছাই করে নতুন করে তালিকা করায় পুরাতন অনেকে বাদ পড়েছেন। বামনী ইউনিয়ন থেকে বাদ পড়া ১০/১৫ জন অসহায় লোক আসছিলেন। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।