বিমল কুন্ডু: সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলা সৈয়দপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ তার বিরুদ্ধে জালালপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ কর্তৃক নানা অপপ্রচারের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন। আজ সোমবার সকালে পৌর এলাকার রূপপুর মহল্লার বাসভবনে আয়োজিত জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, স্থানীয় বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও থানা আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ। লিখিত বক্তব্যে তার বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ কর্তৃক আনিত অভিযোগসমূহ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট উল্লেখ করে তিনি জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন ৭ নং সেক্টরে সশস্ত্র যুদ্ধে অংশ গ্রহণের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকা ভ‚ক্ত হন। ২০০০ সালের ১২ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডের চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ চৌধুরীর যৌথ স্বাক্ষরিত সনদপত্রের (যার ক্রমিক নং- ২৭২৫৭) মাধ্যমে তাকে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করা হয় এবং ২০০৪ সালে তিনি প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেট ভুক্ত হন। লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও জানান, ২০১৭ সালে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা যাচাই- বাছাইকালে তার উপস্থাপিত কাগজপত্রের আলোকে যাচাই-বাছাই কমিটি প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পূণরায় তাকে স্বীকৃতি প্রদান করেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর স্বাক্ষরিত সনদপত্র অনুযায়ী বর্তমানে তিনি মাসিক ভাতাসহ সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছেন। মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ ক্ষোভের সাথে জানান, জালালপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ গত ৬ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যেমে তাকে অপ্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা আখ্যায়িত করে তার ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ উত্থাপন করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমূলক। আগামী ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার লক্ষ্যে সামাজিকভাবে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার হীন উদ্দেশ্যে ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ তার বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন বলে তিনি দাবি করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, ইতিপূর্বে তিনি জালালপুর ইউনিয়নের ২ বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। পাশাপাশি তিনি শাহজাদপুর বঙ্গবন্ধু মহিলা ডিগ্রি কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে প্রায় ১১ বছর দায়িত্ব পালন শেষে অবসর গ্রহণ করেছেন। আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ায় প্রতিপক্ষ বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ তার বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি প্রকৃত তথ্য প্রচারের জন্য উপস্থিত সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে সৈয়দপুর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শাহজাদপুরে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।