শাহীন মাহমুদ: কক্সবাজারের উখিয়া সংলগ্ন নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের বাইশফাঁড়ি সীমান্তে বিজিবি’র সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মিয়ানমারের নাগরিক এক রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে।

বিজিবির দাবী, ‘বন্দুকযুদ্ধে’র পর ঘটনাস্থল থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি একনলা বন্দুক ও ৪ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে সীমান্তের ৩৬/২ নং পিলারের সন্নিকটে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে।

বিজিবি বলছে, নিহত মো. আব্দুর রহিম (২৫) একজন ইয়াবা পাচারকারী। তিনি উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১, ব্লকের ওয়াদুল হকের ছেলে।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ জানান, বাইশফাঁড়ি বিওপি এলাকা দিয়ে মাদকের চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে ঢুকছে– এমন সংবাদের ভিত্তিতে বাইশফাঁড়ি বিওপির দুইটি আভিযানিক টহল দল বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৩নং ঘুমধুম ইউনিয়নের দক্ষিণ বাইশফাঁড়ি এলাকায় অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে পাহাড়ি এলাকা দিয়ে মাদাক পাচারকারীদের একটি দলকে বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে তাদের চ্যালেঞ্জ করলে পাচারকারীরা দুইভাগে বিভক্ত হয়ে তাদের সঙ্গে থাকা অস্ত্র দিয়ে বিজিবির টহল দলকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে বিজিবির টহল দলের সদস্যরা পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে পাচারকারীরা পাহাড়ি জঙ্গলের ভেতর দিয়ে মিয়ানমারে পালিয়ে যায়।

পরে টহল দলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে পড়ে থাকতে দেখে। তাকে উদ্ধার করে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে জিজ্ঞাসাবাদে তার পরিচয় নিশ্চিত হন বিজিবি সদস্যরা। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় গোলাগুলির সময় বিজিবি দুই সদস্য আহত হন। তাদের উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।