সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় নগরবাড়ি মহাসড়কের সোলাগাড়ী এলাকায় দিনের বেলায় চৌদ্দ লাখ টাকা ডাকাতি ঘটনায় থানায় একটি ডাকাতি মামলা দায়ের হয়েছে। মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ দীপক কুমার দাস পিপিএম আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে এগারোটায় প্রেস ব্রিফিং এ তথ্যটি জানিয়ে আরো বলেন, আন্তঃজেলা ডাকাত দলের একটি চক্র এঘটনা ঘটিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে ডাকাতি ঘটনার পরপরই পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করে। এছাড়া এদের কাছ থেকে ৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকা উদ্ধার এবং ২টি মোটরসাইকেল ও ২টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়া ডাকাত দলের ৩ জন হলো-উল্লাপাড়া বন্যাকান্দি গ্রামের মোফাজ্জল সরকারের ছেলে আব্দুল মান্নান (৩৬), কামারখন্দ উপজেলার চরটেংরাইল গ্রামের মজিবর প্রামানিকের ছেলে টুটুল (১৯) ও একই উপজেলার কর্ণসুতি গ্রামের নুর হোসেনের ছেলে আব্দুস সালাম (৪৫)। উল্লাপাড়ার ঘোষগাতীর মীর মোন্নাফ বাদী হয়ে ডাকাতি মামলাটি দায়ের করেছেন। উল্লাপাড়া থানা ক্যাম্পাসে প্রেস ব্রিফিংয়ে মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ দীপক কুমার দাস পিপিএম জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার উল্লাপাড়া মীর ট্রাভেলস পরিচালিত ডাচ বাংলা এজেন্ট ব্যাংকের কর্মচারী মোঃ আরিফ ইমাম খান ডাচ বাংলা ব্যাংকের হাটিকুমরুল শাখা , ও বোয়ালিয়া শাখা থেকে চৌদ্দ লাখ টাকা তুলে নিয়ে উল্লাপাড়ায় সিএনজি যোগে আসছিলেন। নগরবাড়ি মহাসড়কের উল্লাপাড়ার সোলাগাড়ি ব্রীজ এলাকা থেকে দুটি মোটর সাইকেলে ও সিএনজিতে থাকা ছিনতাইকারী তার কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নেয়। ছিনতাইকারীরা উপজেলার বড়হর এলাকায় ছিনতাইয়ের টাকা ভাগ বাটোয়ারা করার সময় মডেল থানা পুলিশ গ্রামের লোকজনের সহায়তায় তিনজন ছিনতাইকারীকে আটক করে। এ সময় অন্য ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। প্রেস ব্রিফিংয়ে আরো জানানো হয় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের একটি চক্র ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত বাকীদের গ্রেফতার ও ডাকাতি হওয়া টাকা উদ্ধারের জোড় চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

Previous articleবাউফলে বিদ্যালয়ের উপকরণ দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করলেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি !
Next articleরংপুরে কৃষকের ধান কাটার কার্যক্রম শুরু করেছে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও কৃষকলীগের নেতা কর্মীরা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।