তাবারক হোসেন আজাদ: গত বছর ঈদ করেছেন কুঁড়েঘরে, অন্যের জমিতে ভাড়া বকড়িতে, আবার কেউ খোলা স্থানে। অনেকের পাতে মাংস-পোলাওয়ের পরিবর্তে জুটেছিল মোটা চালের ভাত আর পাট শাক। তবে এবার লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ২৫টি পরিবার ঈদ করেছেন নতুন ঘরে। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার পাওয়া পাকা ঘরে ঈদ করছেন এসব পরিবারের সদস্যরা। এবার অনেকের ঈদ উপহার নগদ টাকায় পাতে ভালো খাবারও জুটেছে। নতুন ঘর ঈদের আনন্দ বাড়িয়ে দিয়েছে ভূমিহীনদের।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে উপজেলায় ১৬৫টি পাকা বাড়ি নির্মাণের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ২৫টি বাড়ি তৈরি হয়েছে। সুবিধাভোগীদের এসব বাড়ি বুঝে দেওয়া হয়েছে। তাঁরা ইতিমধ্যে বসবাস শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে উপহার পাওয়া পাকা বাড়িতে। অবশিষ্ট ১৪০টি বাড়ির নির্মাণকাজ শেষ পর্যায়ে। ‘জমি আছে ঘর নেই’ এবং ‘জমি ও ঘর নেই’ এমন ব্যক্তিদের এসব বাড়ি উপহার দেওয়া হয়। জমির দলিলও বুঝে দেওয়া হয়েছে।

উপজেলার ২৫টি অসহায় ও দুস্থ পরিবারের সদস্যরা এবার ঈদ উদ্‌যাপন করছেন উপহারের বাড়িতে। এর আগে তাঁরা ঈদ করেছেন ভাঙা ঘরে। অনেকে খোলা স্থানেও বসবাস করাসহ ঈদ উদ্‌যাপন করেছেন। এবার তাঁরা পাকা বাড়িতে ঈদ করতে পারায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। আনন্দও বাড়িয়ে দিয়েছে নিজের পাকা বাড়িতে ঈদ করতে পারায়।

অন্যের ভাড়ায় কুড়েঘরে বসবাস করা ও ঈদের দিনে কলমি শাক দিয়ে ভাত খাওয়া অসহায় কহিনুর বেগমের মনে এবার ঈদের আনন্দ। এবার আর তাদের শাক-ভাত খেতে হচ্ছে না। নিজেরা বাজার থেকে পোলাওয়ের চাল আর পোলট্রি মুরগি কিনে এনেছে। সঙ্গে মিলেছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাওয়া নতুন পাকা বাড়ি।

উপজেলার চরবংশী ইউপি সদস্যের বোনসহ কয়েকজনের কাছ থেকে ৫-১০ টাকা করে আদায়। তথ্যভিত্তিক এ সংবাদ যুগান্তর অনলাইনে সংবাদ প্রকাশিত হয়। তা নিয়ে আলোচনা হয় ব্যাপক। সংবাদটি প্রশাসনের নজরে আসে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঠিকভাবে তদন্ত করে প্রকৃত অসহায়দের প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে একটি পাকা বাড়ি উপহারের ব্যবস্থা করে দেন। ইউএনওর তত্ত্বাবধানে তৈরি হয় পাকা বাড়ি। এ ছাড়া সুপেয় পানিরও ব্যবস্থা করে দিয়েছেন ইউএনও। এবার তারা ঈদ উদ্‌যাপন করছে সেই পাকা বাড়িতে।

শুক্রবার সকালে (১৫ মে) তাদের নতুন বাড়িতে ঈদের আনন্দ করতে দেখা যায়। বৃদ্ধ কহিনুর বেগম তার মেয়ে ও নাতিসহ নতুন পোশাক পরে আছে বাড়িতেই। কিশোরি আরিফা রান্নার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তারা জানায়, নিজেরাই জমানো টাকা দিয়ে ঈদের বাজার করেছে। নতুন জামাকাপড় কেনাসহ বাজার থেকে চিকন চাল, সেমাই ও মুরগি কিনেছে। এসব দিয়ে ঈদ হচ্ছে তাদের। নতুন বাড়িতে ঈদ করতে পারায় ভালো লাগছে বলে মন্তব্য তাদের। তারা এ জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও যুগান্তরের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে।

চরবংশী গ্রামের কহিনুর বেগম (৫০) ও চরলক্ষ্মী গ্রামের লোকমান হোসেন (৪৫) প্রধানমন্ত্রীর উপহারের পাকা বাড়িতে ঈদ করছেন। বাড়িতে গোস্ত ও পোলাও রান্না হয়েছে। গত ঈদ করেছেন খোলা স্থানে ও ভাড়া বাড়িতে । তারা বলেন, এবার ঈদের আনন্দটাই বেশি। নিজেদের বাড়িতে ঈদ করতে ভালো লাগছে। জীবনে এ রকম ঈদ আনন্দ আর আসেনি বলে মন্তব্য করেছেন তারা। স্থানীয় ইউপির চেয়ারম্যান এ ব্যবস্থা করে দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন।

দক্ষিন চরবংশী ইউপির চেয়ারম্যান আবু সালেহ মিন্টু ফরাজি বলেন, পরিবারগুলো খোলা স্থানে, রাস্তার পাশে ও অন্যের জমিতে বাস করত। কোনো আনন্দও ছিল না। প্রধানমন্ত্রী তাদের বাড়ির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। ইউনিয়নের ২৫ জন পাকা বাড়িতে এবার ঈদ করছেন। আরও ১৯ টি বাড়ির নির্মাণ কাজ চলছে। ঈদের আগে তাদের নগদ ৫০০ ও ৪৫০ টাকা করে দেওয়া হয়েছে।

দক্ষিন চরবংশী ইউনিয়নের চরকাছিয়া আশ্রয়ণে গিয়ে একটি পরিবারকে নতুন ঘরে ঈদ উদ্‌যাপন করতে দেখা যায়। পরিবারটি আগে সরকারি সড়কের পাশে থাকত। এবার নিজেদের পাকাঘরে ঈদ করছে বলে জানিয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা দিলিপ চন্দ্র দে বলেন, দুর্যোগসহনীয় প্রকল্পে ঘরসহ মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেওয়া ২৫টি পাকা ঘরে সুবিধাভোগীরা বসবাস শুরু করেছেন। তাঁদের জমির দলিলও বুঝে দেওয়া হয়েছে। মেঘনার তীরবর্তী দক্ষিন চরবংশী ইউপির মিয়ার হাট ও চরআবাবিল ইউপির উদমারা গ্রামে আরো ১৪০টি পাকা ঘর নির্মাণ শেষ পর্যায়ে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাবরীন চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহার যাঁরা পেয়েছেন, সবাই খুশি। খুঁজে খুঁজে বের করে তাঁদের এই উপহারের আওতায় আনা হয়েছে। কহিনুর ও লোকমানসহ যাঁরা নতুন ঘরে ঈদ করতে পারছে তাঁদের জন্য নিজেরও ভালো লাগছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদকসহ আটক ২, ভ্রাম্যমান আদালতে সাজা
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।