বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ধানমন্ডি লেকে দুই কিশোর গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রেমের কারণে। আর সেখান থেকেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। যেখানে অপর পক্ষের ছুরিকাঘাতে তিনজন আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল ভর্তি আছে। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পুলিশ বলছে, পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (০৩ জুন) দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়ায়। এ ঘটনায় কয়েজনকে এরই মধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে ধানমন্ডি থানা পুলিশ।

দুই কিশোর গ্রুপের দ্বন্দ্বে রাত থেকেই ঢাকা মেডিকেল থেকে ধানমন্ডি থানা, দুই কিশোর গ্রুপের স্বজনদের উপস্থিতি। কেউ মুখ খুলতে চান না কী হয়েছে, কেন এই ঘটনা ঘটলো। তথ্য বলছে, দুই কিশোর গ্রুপের সবাই রাজধানীর ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন এলাকার অভিজাত পরিবারের সন্তান।

থানায় আটক থাকা এমন তিনজনের অভিভাবক বলেন, আমরা কিছুই জানি না, ছেলেকে পুলিশ থানায় নিয়ে এসেছে, সবাই ছাত্র পড়াশোনা করে। বন্ধু আহত হওয়ার পর তারাই উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। এর বাইরে কিছুই জানি না।

পুলিশ বলছে, ফেসবুকে এক মেয়ের সঙ্গে পরিচয় হয় দুই কিশোর গ্রুপের। যারা সবাই কলেজের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী। একজন মেয়ে দুই গ্রুপের একাধিক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল এমন অভিযোগ নিয়ে দ্বন্দ্ব ছিল আগে থেকেই।

দুই গ্রুপের পরিকল্পনা অনুযায়ী ধানমন্ডির স্থানীয় জুনায়েদ এবং অপর পক্ষ কায়েস এবং মিরাজ গ্রুপ বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের বন্ধুদের নিয়ে আসে মামারারি করার জন্য।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডি লেকে অবস্থান নিলে জুনায়েত গ্রুপের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে প্রতিপক্ষের তিনজন আহত হন। যাদের মধ্যে সৌরভের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা বলছেন, দুই গ্রুপের প্রায় ২০ জনের বেশি সদস্য ধারালো অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ জড়ায়।

একজন ফুল বিক্রেতা বলেন, এইপাশ থেকে ১৫-২০ জনের একটা গ্রুপ বলছে ধর ধর, অন্য পাশ থেকে আরেকটা গ্রুপ বলছে ধর ধর পরে একজনের হাতে দেখলাম বড় রকমের জখম হয়েছে, আরেক জনের পেট এবং পিঠে গভীর ক্ষত হয়েছে, পুরো লেকে রক্তের দাগ লেগে আছে। যারা এখানে এসেছেন সবাই বয়সে তরুণ।

আরেক জন শরবত বিক্রেতা বলেন, দেখলাম একটা ছেলে পড়ে আছে, কয়েকজন মেয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে গেল।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত একাধিক কিশোরকে আটক করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানায় পুলিশ। তবে কেউ ক্যামেরার সামনে কথা বলেন নি।

Previous article৮০ শতাংশের দেহেই ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত: আইইডিসিআর
Next articleদেশে ফের করোনায় মৃত্যু বেড়েছে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।