তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর জেলা পরিষদ (ডাকবাংলো) যেন জুয়ার আখড়ায় পরিনত হয়েছে। প্রায় রাত থেকে ভোর পর্যন্ত চলে জুয়ার আসর। এতে অংশগ্রহন করে চিহ্নিত ও প্রভাবশালী জুয়ারীরা। তাই ওদের কেও কিছুই করতে পারে না। অবশেষে শনিবার রাতে ( ৫ জুন) জেলা গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি) অভিযান চালিয়ে জুয়া খেলা অবস্থায় এক জনপ্রতিনিধিসহ ৮ ব্যবসায়ীকে আটক করেন।

ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাত সাড়ে ৯টার সময় (৫ জুন) রায়পুর শহরের উপজেলা পরিষদ সড়কের জেলা পরিষদে ডাকবাংলোতে। আটককৃতদের রোববার (৬জুন) দুপুরে জুয়া আইনে গ্রেপ্তার দেখিয়ে লক্ষ্মীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, জুয়া খেলার সামগ্রিসহ মোঃ কামাল হোসেন (৪৮), রায়পুরের সোনাপুর ইউপি সদস্য আবদুল্যাহ আল-মামুন (৩৬), ব্যবসায়ী আদুল্যাহ আল-মামুন (৩০), আবদুল্যাহ আল-মামুন (৩৫), ফজলুল হক (৫২), মোঃ রাসেল (৩৯), মোঃ বিল্লাল হোসেন (৩৩) ও জামাল হোসেন (৩৮)। তবে-এঘটনায় পৌরসভার ৮নং নম্বর কাউন্সিলর আবদুল কাদের রিয়াজের নাম আলোচনায় আসলেও সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তি করছেন বলে তিনি দাবি করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রায়পুর পৌরসভার কাউন্সিলর আবদুল কাদের রিয়াজের কাছ থেকে সাড়ে তিন বছর আগে ডাকবাংলোর মিলনায়তন লিজ বাতিল করে নীজেরাই পরিচালনা করছেন জেলা পরিষদ। সেখানে বিয়ে ও সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দিবসের অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। বর্তমানে ভবনের দোতলায় বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা ভ্রাম্যমান ছোট ব্যবসায়ীরা ভাড়ায় বসবাস করছেন। তার পাশেই ডাকবাংলোর আবাসিক কক্ষে সরকারি কর্মকর্তাগন রাত যাপন করে থাকেন। বাংলোর পেছনের দুটি কক্ষে পরিবার নিয়ে বসবাস করে তত্বাবধায়ক বিল্লাল হোসেন।

অভিযোগ রয়েছে বিল্লালের ছেলে মামুন হোসেনের সহযোগিতায় স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট সারা রাত জুয়ার আসর বসিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আদায় করে।এজুয়ার আসরে জনপ্রতিনিধি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সরকারি কর্মকর্তাসহ চিহ্নিত জুয়ারীরা সারা রাত মেতে থাকেন। এছাড়াও সেখানে মাদক আড্ডাও বসে। এবিষয়ে স্থানীয়রা ব্যাবস্থা নিতে কয়েকবার আইনশৃংখলাবাহিনীকে বললে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

অবশেষে- শনিবার রাতে জেলা গোয়ান্দা সংস্থা (ডিবি) বিশেষ অভিযান চালিয়ে জনপ্রতিনিধিসহ ৬ জুয়ারীকে আটক করেন। এতে একদিকে যেমন- অন্য জুয়ারিদের মাঝে আতংক, অন্যদিকে সুশীল সমাজে মৃদু হাসি বিরাজ করতে দেখা গেছে।

রায়পুর জেলা পরিষদের তত্বাবধায়ক বিল্লাল হোসেন বলেন, ঘটনার সময় আমি মসজিদে ছিলাম। এসম্পর্কে কিছুই জানিনা দাবি করেন।

তবে এঘটনায় আটক অভিযুক্তরা বলেন, দুষ্টামি করতে গিয়ে ধরা খেয়ে গেছি। ভূল আর হবে না।।

লক্ষ্মীপুর গোয়েন্দা সংস্থার (ডিবি) ওসি আজিজুর রহমান বলেন, গোপন সংবাদ পেয়ে এসআই টিপু সুলতান ঘটনার সময় রিয়াজ কাউন্সির বের হতে দেখেন। তাকে স্পটে না পাওয়ায় এক মেম্বারসহ ৮ জুয়ারীতে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে জুয়া আইনে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর-জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা কুল প্রদিপ চাকমা বলেন, এবিষয়ে আমার জানা নাই। আজকেই সংবাদ পেলাম। সংশ্লিষ্টরা ব্যাক্তিরা যদি জড়িত থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১০৬ জন আক্রান্ত ৩ জন মৃত্যু
Next articleরায়পুরে ১৫০ বছরের পুরোনো মসজিদ ডিজিটাল রুপান্তরে নির্মান শুরু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।