ফজলুর রহমান: রংপুরের পীরগাছা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পাটিতে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও জামায়াতের কোন বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। আট ইউনিয়নের মধ্যে পাঁচটিতেই আওয়ামী লীগের, দুটিতে বিএনপি ও একটিতে জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, ইটাকুমারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবুল বাশার। অন্নদানগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম। এখানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা পরিষদ এর নির্বাচিত সদস্য আনোয়ার হোসেন দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। ছাওলা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল হাকিম। এখানে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপজেলা কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর আকন্দ। তাম্বলপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রাার্থী বিদ্যুৎ কুমার রায় ও শাহিন সরদার। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্ঠা পরিষদের সদস্য আবুল কালাম আজাদ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ক্রিড়া সম্পাদক সোহরাব হোসেন মিঠু, বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা কৃষিবিদ পরিষদ এর সাবেক উপজেলা সভাপতি ও স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সদস্য নুরুজ্জামান সরকার। কান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আমিনুল ইসলাম রাজ্জাক। এখানে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খাঁন। কৈকুড়ি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম লেবু। পারুল ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। পীরগাছা ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম জালাল। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, পীরগাছা ইউনিয়নে বিএনপি থেকে নির্বাচন করছেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান রেজা।

অন্নদানগর ইউনিয়নে বিএনপি থেকে নির্বাচন করছেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জিল্লুর রহমান। এখানে একই দলের স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করছেন ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য মাহবুবার রহমান। ছাওলা ইউনিয়নে বিএনপি থেকে নির্বাচন করছেন উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নাজির হোসেন। দলীয় সমর্থন না পেয়ে ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সাংগাঠনিক সম্পাদক শাহ মোঃ নুরে আলম সিদ্দীকি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। কান্দি ইউনিয়নে বিএনপি থেকে নির্বাচন করছেন উপজেলা বিএনপির সদস্য আব্দুস ছালাম আজাদ জুয়েল। জাপা সূত্রে জানা গেছে, কৈকুড়ী ইউনিয়নে দলের প্রার্থী হয়েছেন ইউনিয়ন সভাপতি নূর আলম। এখানে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাপার সদস্য বাবুল আখতার। তাম্বুলপুর ইউনিয়নে দলের প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম লাবলু। পীরগাছা ইউনিয়নের দলের প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা কমিটির সদস্য রনজু আলম। ইটাকুমারি ইউনিয়নে দলের প্রার্থী হয়েছেন ইউনিয়ন কমিটির সদস্য সাইফুল ইসলাম সোহেল। জামায়াত সুত্রে জানা গেছে, তাম্বুলপুর ইউনিয়নে দলের প্রাথী হয়েছেন উপজেলা জামায়াতের আমীর বজলুর রশিদ মুকুল। কৈকুড়ি ইউনিয়নে দলের প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা জামায়াতের সাংগাঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিলন। এছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী রয়েছে ৬ জন। পীরগাছায় মাওলানা সাইফুল ইসলাম, অন্নদানগরে রিয়াজুল ইসলাম, তাম্বুলপুরে আব্দুস ছামাদ, কান্দিতে আমির উদ্দিন, কৈকুড়িতে হাফেজ আসাদুজ্জামান রানু ও ইটাকুমােিত জাহিদুল ইসলাম। তারা দলীয় প্রতীক হাতপাখা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন। বাংলাদেশ কংগ্রেস উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নে নির্বাচন করছেন। পীরগাছায় শহিদুল ইসলাম, ইটাকুমারিতে আদম আলী, তাম্বুলপুরে শফিকুল ইসলাম ও কৈকুড়িতে হারুন পাশা। তারা দলীয় প্রতীক ডাব মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন। উপজেলায় একমাত্র ইউনিয়নের জাসদ নেতা দলীয় প্রতীক ছাড়াই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পারুল ইউনিয়নে নির্বাচন করছেন আবুল কালাম আজাদ। উপজেলার ৮ ইউনিয়নে ৫০ জন চেয়ারম্যন, ৩৪৯ জন সাধারন সদস্য ও ১২৭ জন মহিলা সদস্য হিসেবে রিটার্নিং কর্মকতাদের দপ্তরে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

Previous articleরায়পুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন: দল থেকে অব্যাহতি প্রাপ্তরাও নৌকা পেতে দৌঁড়ঝাপ
Next articleপিএসসি’র প্রশ্নফাঁস করলে ১০ বছরের কারাদণ্ড
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।