জয়নাল আবেদীন: স্ত্রীর সাথে সম্পর্কের অবনতি ঘটিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদ অতপর শ্যালিকাকে অপহরন করে বিয়ে । এরপর তাকেও হত্যা । এই নির্মম ঘটনার প্রধান আসামী সহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৩ ।

রোববার সকালে রংপুরের সাংবাদিকদের কাছে র‌্যাবের সহকারী পরিচালক ফ্লাইট লেটটেন্যান্ট (মিডিয়া) মাহমুদ বশির আহামেদ এই নির্মম চিত্র তুলে ধরেন । তিনি লিখিত বক্তব্যে জানান নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার স্কুল শিক্ষক সিরাজুল ইসলামের বড় মেয়ের সাথে বিয়ে হয় একই এলাকার শহিদ শাহের। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই শহিদ শাহের কুদৃষ্টি পরে তার শ্যালিকার উপর। এই নিয়ে প্রায়ই স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কলহের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে গত বছরে জুলাই মাসে স্ত্রীর সাথে সম্পর্কের অবনতি ঘটলে স্বামীর সাথে স্ত্রীর বিচ্ছেদ ঘটে। পরবর্তীতে খোরপোষ ও দেনমোহর আদায়ে কিশোরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করে। এই মামলায় শহিদ শাহ ৩মাস জেল হাজত খাটে । এরপর জামিনে মুক্ত হয়ে এসে গত বছরের ১৪ অক্টোবর শ্যালিকাকে অপহরণ করে গা-ঢাকা দেয়। এর পর তাকে বিয়ে করে আত্মগোপন করে।

র‌্যাব জানায় এর পর দ্বিতীয় স্ত্রী (শ্যালিকা) অন্তঃস্বত্তা হয়ে পরে। চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি তাকে নির্যাতনের এক পর্যায়ে পেটে লাথি মারলে শ্যালিকা স্ত্রী রক্তক্ষরণে তাঁর মৃত্যু হয় । এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে ২০ জানুয়ারী কিশোরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করে। মামলা নং-১১ । এদিকে র‌্যাবের একটি বিশেষ দল গোপন সংবাদ এবং কারীগরী কৌশল অবলম্বন করে শুক্রবার রাতে গাজিপুরের কালিকৈর উপজেলার সফিপুর লস্কার চালা এলাকা থেকে মামলার প্রধান আসামী শহিদ শাহ, হেলাল মিয়া ও করিম মিয়াকে গ্রেফতার করে। র‌্যাব জানায় গ্রেফতারকৃতরা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

Previous articleবড়পুকুরিয়ায় এমডিসহ ৬৭ কর্মকর্তা করোনা আক্রান্ত, কয়লা উত্তোলন বন্ধ
Next articleময়মনসিংহ জেলা রেটেড দাবালীগ-২০২১ উদ্বোধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।