বাংলাদেশ প্রতিবেদক: সরকারী একটি বিশেষ বাহিনীর সৈনিক হিসাবে কর্মরত ছিলেন, প্রায় দুই দশক আগে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে চাকরিচ্যুত হন ৷

পরবর্তীতে হয়ে যান জনপ্রতিনিধি ৷ পোর কাউন্সিলরের লেবাশে হয়ে ওঠেন আরও বেশি ভয়ংকর ৷ জড়িয়ে পড়েন নানা অপরাধে ৷ চাঁদাবাজি, ছিনতাই, আপোষ – মিমাংসার নামে অর্থ বানিজ্য সহ নানা অপরাধে ৷ পুলিশ পরিচয়ে গড়ে তোলেন সক্রিয় একটি ছিনতাইকারী চক্র ৷ এ তথ্য প্রকাশ্যে আসে শনিবার বিকালে রেব তাকে গ্রেফতার করলে ৷

তিনি যশোর চৌগাছার ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোস্তফা ওরফে মোস্তাফা বিশ্বাস ৷ ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইয়ের প্রস্তুতিকালে সাতক্ষীরা জেলার পাটকেল ঘাটা উপঝেলার বাইগুনি এলাকা থেকে মোস্তফাসহ ছিনতাইকারী চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয় ৷ খুলনায় প্রেস ব্রিফিংর সময় রেব মুখপাত্র মোশতাক আহম্মেদ জানান এরা দীর্ঘদিন সাধারন মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছিলো ৷ পুলিশ পরিচয়, পোশা ও অস্ত্র দেখে তাদের ভয়ে কেউ কিছু বলতে সাহস পেত না ৷ তাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ অনেক পুরানো ৷ গোপন তথ্যের উপর ভিত্তি করে শুক্রবার রাতে আমাদের একটি টিম অভিযানে নেমে সাতক্ষীরা জেলার পাটকেলঘাটা থানার বাইগুনি গ্রামের হারুন অর রশীদ ডিগ্রী কলেজের পশ্চিম পাশে অবস্থান নিয়ে তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল জব্দ করে ৷ এ সময় তারা সন্তোষজনক কোনো উত্তর দিতে পারেনি ৷ জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তারা স্বীকার করে ডিবি পোশাক, খেলনা পিস্তল দিয়ে মানুষকে ভয় দেখিয়ে ছিনতাই সহ নানা অপরাধ করে বেড়ায় ৷ তাদের কাছ থেকে একটি মোটরসাইকেল, একটি প্রাইভেট কার, একটি খেলনা পিস্তল, দুইটি রিভালবারের কভার, দুইটি ওয়াকিটিকি, দুইটি ডিবি পরিচয় পত্র ও পোশাক, দুইটি হ্যান্ডকাপ, পুলিশের দুইটি ফিল্ডক্যাপ, পুলিশের ভুয়া আইডি কার্ড, চারটি ফোন, অস্ত্র রাখার একটি ব্যাগ ও পিস্তল বাধার একটি চেন ৷

এলাকাবাসী জানাই প্রাই দুই দশক আগে সরকারী একটি বিশেষ বাহিনীতে কর্মরত থাকা অবস্থায় ছিনতাইয়ের অভিযোগে চাকরি হারান ৷ তারপর এলাকার রাজনীতিতে সক্রিয় হন ৷ তারপর কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতাসীন দলের একাংশের ছত্র ছায়ায় শুরু করেন নানা ধরনের অপরাধ ৷ তবে পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনা প্রকাশ্যে আসে গ্রেফতারের পরে ৷ এ নিয়ে এলাকায় চলছে কঠোর সমালোচনা ৷ কাদের মদদে এ সব কর্মকান্ড করতো ৷

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন তার বিরুদ্ধে ২০১৭ সালে থানায় একটি মামলা হয় ৷

পৌরসভার মেয়র নুর উদ্দীন আল মামুন হিমেল বলেন বিধিমালা খতিয়ে দেখে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপর মহলকে অবহিত করা হবে ৷

Previous articleসোনারগাঁওয়ে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুপক্ষের সংঘর্ষ
Next articleপরিবহনের শৃংখলা ফেরাতে এবং সড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে দক্ষ চালকের বিকল্প নেই: বিআরটিসির চেয়ারম্যান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।