জয়নাল আবেদীন: জিংক সমৃদ্ধ ধান ও চাল (ব্রি-ধান ৭৪) সংগ্রহ বিষয়ক কর্মশালা বুধবার রংপুর জেলা খাদ্র নিয়ন্ত্রকের সন্মেলন কক্ষে অনুষ্টিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রংপুর আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক আশরাফুল আলম।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, রংপুর বিভাগের ৮ জেলার মধ্যে রংপুর, গাইবান্ধা ও ঠাকুরগাও জেলায় জিং ধানের চাষ করা হচ্ছে। এবার বোরো মৌসুমে এই তিন জেলার ৬ হাজার ২ শত ১০ হেক্টর জমিতে জিংক ধানের চাষ করা হয়েছে। উৎপাদন ধারা হয়েছে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন। জিং ধান ১৪৫ দিনের মধ্যে ঘরে তোলা যায়।

রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলায় এই ধান সবচাইতে বেশি চাষ হয়ে থাকে। পুষ্টি ও গুনগত মানের দিক থেকে এই ধানের চাষ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।কর্মশালায় বক্তারা বলেন, জিং ধান চাষের জন্য কৃষদের মাঝে ২ হাজার মেট্রিক টন বীজ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্টান ও বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থাগুলোও জিং ধানের বীজ কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করে আসছে।

রংপুর জেলা খাদ্র নিয়ন্ত্রক রিয়াজুর রহমান রাজের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন তারাগঞ্জ উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন, রংপুর প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বাপ্পী প্রমুখ। কর্মশালায় খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা,কৃষি বিভাগ, কৃষক, সাংবাদিক, মিলার, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিরা অংগ্রহণ করে।

Previous articleঈশ্বরদীতে ছাত্রলীগ কার্যালয়সহ চার শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
Next articleঈশ্বরদীতে পদ্মায় পানি বৃদ্ধি, শুরু হয়েছে নদী ভাঙন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।