পাভেল মিয়া: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলায় ভাগ্নের আঘাতে মামার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গত ২৩ জুন বৃহস্পতিবার বিকেলে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের তেলীপাড়া গ্রামের গাবেরতলে এ ঘটনা ঘটেছে।

তেলীপাড়া গ্রামের মৃত হাসেব এর পুত্র মজিউল্লার সাথে তার আপন ভাগ্নে আসাদুলের কথা কাটাকাটি ও ধাক্কাধাক্কি হয়ে ভাগ্নের ঘুষিতে তাৎক্ষনিক পড়ে গিয়ে মামা আহত হন,পরে স্থানীয় চিকিৎসক এসে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূর্ব থেকে চার-পাঁচ হাত জায়গা নিয়ে মামা-ভাগ্নের দুই পরিবারে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। আদ্র আবহাওয়া ও বাতাসে ভাগ্নের একটি সুপারি গাছ মামার ঘরে পড়লে ২৩ জুন, বৃহস্পতিবার সেখানে পলিথিন লাগাতে যান মামা মজিউল্লা। এ নিয়ে বিকেলে দুই পক্ষের মধ্যে মামীর সাথে ভাগ্নে-বউয়ের দ্বন্দ্ব লাগলে মামা ও ভাগ্নে এগিয়ে আসে তাদের মধ্যেও কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতা-হাতির ঘটনা ঘটে। হাতা-হাতির এক পর্যায়ে ভাগ্নে আসাদুলের ঘুষিতে মামা লুটিয়ে পড়ে, এর পরপরই তার মৃত্যু হয়। স্থানীয় চিকিৎসক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

হাসনাবাদ ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নূরজামালকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, মামা-ভাগ্নের মধ্যে পারিবারিক দ্বন্দ্ব থেকে এক পর্যায়ে ধাক্কা-ধাক্কির ঘটনা ঘটেছে, এর এক পর্যায়ে মামার মৃত্যু হয় বলে জেনেছি, মামার আগে থেকেই নাকি হার্টের সমস্যা ছিল বলেও জানতে পেরেছি।

২৩ জুন গত বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নাগেশ্বরী থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ তামবিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আছি, এখনো মামলা দায়ের করা হয়নি।

Previous articleতাহিরপুরে আধিবাসী তরুণীকে যৌন হয়রানি, আটক ২
Next articleডাকাতির প্রস্তুতিকালে ঈশ্বরদীতে ট্রাক ও অস্রসহ আটক ২
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।