বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালে ট্রাকচাপায় মায়ের পেট ফেটে জন্ম নেয়া নবজাতককে পালাবদল করে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন ওই হাসপাতালে সন্তান প্রসব করা অন্যান্য প্রসূতি মায়েরা। শিশুটি ময়মনসিংহ মহানগরীর লাবিব প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

রোববার দুপুরে লাবিব হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহজাহান মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ট্রাকচাপায় মা-বাবা ও বোন হারানো নবজাতক আমার হাসপাতালে ভর্তি আছে। হাসপাতালের অন্যান্য প্রসূতি মায়েরা বুকের দুধ পান করাচ্ছেন। এতে বাচ্চাটির বুকের দুধের চাহিদা পূরণ হচ্ছে। আশা করছি বাচ্চাটি ১৫ থেকে ২০ দিনের মাঝে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠবে।

একই হাসপাতালে পাঁচ দিন আগে কন্যা সন্তান প্রসব করেন সদর উপজেলার দাপুনিয়ার কানাপাড়ার আলমাসের স্ত্রী নাছিমা বেগম।

তিনি বলেন, শুনেছি ওই শিশুটির জন্মের সময় সড়ক দুর্ঘটনায় মা, বাবা ও বোন মারা গেছে। আমি একজন মা হিসেবে আমার বুকের দুধ দিয়েছি।

লাবিব হাসপাতালের সেবিকা (নার্স) সুরাইয়া ইয়াসমিন বলেন, শনিবার রাতে এক প্রসূতি তার বুকের দুধ দিয়েছিল। সকালে তার ছুটি হয়ে গেছে। পরে নাছিমা বেগম নামে আরেক প্রসূতি তিনবার দুধ দিয়েছেন। আজ তারও ছুটি হয়ে যাবে। তবে হাসপাতালে আরো কয়েকজন প্রসূতি আছেন। তারা স্বেচ্ছায় ওই শিশুকে বুকের দুধ দেবেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে শিশুটিকে এক নজরে দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকার মানুষ হাসপাতালে ভিড় করছে।

প্রসঙ্গত, শনিবার দুপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালে ট্রাকচাপায় শিশুটির বাবা জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), মা রত্না বেগম (২৬) ও বোন আড়াই বছর বয়সী জান্নাত আরা মারা যায়। তাদের বাড়ি ত্রিশাল উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের রায়মনি গ্রামে। এ সময় ট্রাকের চাপায় রত্নার গর্ভে থাকা সন্তান বের হয়ে আসে।

Previous articleআমরা শক্ত ভিত্তির ওপর নির্বাচন করতে চাই: সিইসি
Next articleআ’লীগ কখনো ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চায় না: কাদের
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।