আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জ্বালানি ও নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি এবং দুই কর্মী নিহতের প্রতিবাদে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশে আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলার ঘটনা ঘটেছে। রোববার সকালে উপজেলা বিএনপির কার্যালয় চত্ত্বরে ও দুপুরে চারান বাজারে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলে এহামলার ঘটনা ঘটে।

উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক মোঃ মজনু মিয়া জানান, রোববার সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ সকল অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেন। এ সময় যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সেচ্ছাসেবকলীগ কর্মীরা টাঙ্গাইল ময়মনসিংহ মহাসড়কে দু’দফা লাঠিসোটা নিয়ে দু’দফা মিছিল করতে করতে মহড়া দেয়। এসময় তারা চারানের সমাবেশে যাওয়ার সময় চারটি বাস ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পুরাতন কার্যালয়ের সামনে একটি বাস ভাঙচুর করেন। এরপর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোজাহারুল ইসলাম তালুকদার ঠান্ডুর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সেচ্ছাসেবকলীগ কর্মীরা বিএনপির সমাবেশ স্থলে গিয়ে হামলা করেন এ সময় বিএনপির ১০- ১২জন নেতাকর্মী আহত হয়। পরে বিএনপির বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী কালিহাতী-বল্লা আঞ্চলিক সড়কের চারান বাজারে সমবেত হয়।

উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক মোঃ মজনু মিয়ার সভাপতিত্বে চারান বাজারের সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুজ্জামিল শাহীন ও ফরহাদ ইকবাল প্রমুখ। প্রধান অতিথি বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বেনজীর আহমেদ টিটুর বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সমাবেশ শেষ হয়। সমাবেশের পর একটি বিক্ষোভ মিছিল শেষে যাওয়ার সময় কোকডহরা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি লুৎফর রহমান খান আরিফ, সিনিয়র সহ-সভাপতি তুহিন সিদ্দিকী ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক সাদ্দাম হোসেন বাবুর নেতৃত্বে দেশীয় অস্ত্র রামদা, রড ও লাঠিসোটা নিয়ে ৫০জন তাঁদের উপরে হামলা করে। এ সময় তাঁরা ঘটনাস্থলে তিনটি বাস ও দুটি পিকআপ ভাঙচুর করেন। এসময় কোকডহরা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বুলেট বাবু ও আওয়ামীলীগ কর্মী চান মিয়া ওরফে চানেকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র রামদা হাতে দেখা যায়। এ সময় তাদের আঘাতে ১৫জন নেতাকর্মী আহত হন। চারান বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আবু সাঈদ খান এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন বিএনপি এখানে একটি সমাবেশ করেছে কিন্তু কোনও অনুমতি নেয়নি। কে বা কারা হামলা ও ভাঙচুর করেছে তা আমরা দেখিনি।

এঘটনার প্রেক্ষিতে জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুজ্জামিল শাহীন স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এর তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ এবং হামলায় জড়িতদের গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। এতে জানানো হয়েছে আহতরা হলেন উপজেলা বিএনপি’ আহবায়ক মজনু মিয়া, পাইকড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র আহবায়ক তাইবুর রহমান তোতা, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক নুরুজ্জামানসহ ২৫ জন নেতা-কর্মী।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু এ বিষয়ে আজকের বাংলাদেশকে বলেন বিএনপিসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা নাশকতার উদ্দেশ্যে একত্রিত হলে জনসাধারণ আওয়ামীলীগের সাথে মিশে তাদেরকে প্রতিহত করেছেন। হামলা-ভাঙচুরের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন। কালিহাতী সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মো. শরীফুল হক এ বিষয়ে আজকের পত্রিকাকে বলেন বিএনপির সমাবেশে ছাত্রলীগ-যুবলীগ বাধা দিয়েছে কিনা তা আমরা দেখিনি। গাড়ি ভাঙচুর ও হামলার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি বিএনপি’র কোন্দলের কারণে হয়েছে কিনা তা পরবর্তীতে খতিয়ে দেখা যাবে।

Previous articleকুড়িগ্রামে পরিত্যক্ত বাড়িতে অজ্ঞাত যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ
Next articleপাঁচবিবিতে ওয়ার্ড বিএনপির নেতাসহ ফেনসিডিল নিয়ে ৩ মাদক কারবারি আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।