জয়নাল আবেদীন: রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নিতে ১শ৪৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্যে মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০২ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব আবদুল বাতেন। রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে ৭ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা করার পর থেকে মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু হয়। দশ দিনে সর্বমোট ১৪৩ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়র পদে জাতীয় শ্রমিক লীগের রংপুর মহানগরের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর (পরুষ) পদে ৪১ এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছেন । এদিকে নতুনদের সাথে সাথে ৭জন রানিং কাউন্সিলর মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেছেন ।

এদের মধ্যে বর্তমান প্যানেল মেয়র ও ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহামুদুর রহমান টিটু, ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম, ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেকেন্দার আলী, ১৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমিনুর রহমান, ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমান মিজু, ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আফজাল হোসেন, ২৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী নুর ইসলাম।বৃহস্পতিবার মেয়র পদে শ্রমিক নেতা এম এ মজিদ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪১ এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। এর আগে বর্তমান মেয়র ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রংপুর মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আমিরুজ্জামান পিয়াল মনোনয়নপত্র কিনেছেন। সবমিলিয়ে গত দশদিনে ১৪৩ জন সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র কিনেছেন।

এখানে উল্লেখ্য সাবেক পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ডের সঙ্গে বর্ধিত এলাকার আরও ১৮টি ওয়ার্ড যুক্ত করে ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে ২০১২ সালের ২৮ জুন রংপুর সিটি করপোরেশন গঠন করা হয়। এরপর প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ওই বছরের ২০ ডিসেম্বর। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝণ্টু প্রথম নগরপিতা হিসেবে নির্বাচিত হন। বর্তমানে এই সিটির জনসংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। আর ভোটার রয়েছে চার লাখেরও বেশি। ২০১৭ সালের ২১ ডিসেম্বর দ্বিতীয় নির্বাচনের সময় ভোটার ছিল ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ জন। এতে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে মোস্তফা মেয়র নির্বাচিত হন।

এবার তৃতীয় বারের মতো রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই এবং ৮ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে পরের দিন ৯ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা ১৭ দিন প্রচার-প্রচারণার সুযোগ পাবেন। ২৭ ডিসেম্বর ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে।

Previous articleপাঁচবিবিতে ৭ কেজি গাঁজার গাছসহ গ্রেফতার ১
Next articleমুলাদীতে ভিজিডির তালিকায় নাম উঠাতে স্বজনপ্রীতি ও টাকা নেওয়ার অভিযোগ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।