উইঘুর মুসলিম নির্যাতন: মার্কিন পার্লামেন্টে চীনের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিল পাস

বাংলাদেশ ডেস্ক: চীনে উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতনে দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারির বিলটি সিনেটের পর এবার মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদেও অনুমোদিত হয়েছে। বিলটি এখন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অনুমোদনের জন্য হোয়াইট হাউসে যাবে। তিনি স্বাক্ষর করলেই তা আইনে পরিণত হবে।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ও মানবাধিকার সংগঠন এরইমধ্যে আলামত হাজির করতে সমর্থ হয়েছে যে; চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর, তার্কিকসহ বিভিন্ন সংখ্যালঘু মুসলমানদের ক্যাম্পে আটক রেখে নির্যাতন করা হয়। জাতিসংঘের আশঙ্কা, সেখানে ১০ লাখেরও বেশি মুসলিমকে বন্দিশিবিরে আটকে রাখা হয়েছে। তবে চীনের দাবি এসব ক্যাম্পে ভোকেশনাল প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে রিপাবলিকান সিনেটর মার্কো রুবিও উইঘুর নির্যাতনে দায়ী চীনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মার্কিন সিনেটে বিল উত্থাপন করেন। এতে দমন অভিযানে দায়ী চীনা কর্মকর্তাদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং দেশটিতে থাকা সম্পদ জব্দের কথা বলা হয়েছে। রিপাবলিকান নেতৃত্বাধীন সিনেটে সর্বসম্মতভাবে বিলটি পাস হয়েছিল। বুধবার প্রতিনিধি পরিষদেও ‘দি উইঘুর হিউম্যান রাইটস অ্যাক্ট’নামের বিলটি ৪১৩-১ ভোটের ব্যবধানে পাস হয়ে যায়।

বিলটির সমর্থনে ডেমোক্র্যাট সদস্য ও হাউসের স্পিকার ন্যানসি পেলোসি বলেন, উইঘুর জনগণকে লক্ষ্য করে বেইজিংয়ের বর্বর আচরণ বিশ্ববাসীর সম্মিলিত বিবেককে বিক্ষুব্ধ করেছে। দ্বিপক্ষীয় বার্তায় হাউসের আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির শীর্ষ রিপাবলিকান মাইকেল ম্যাককোল একে ‘রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় সাংস্কৃতিক গণহত্যা’ আখ্যা দিয়েছেন।