বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পৃথিবীর কোথাও একদিনে ৭০ হাজার গৃহহীন পরিবারকে মাথা গোঁজার ঠাঁই হিসেবে জমিসহ ঘর উপহার দেয়া হয়েছে কিনা আমার জানা নেই-মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, তিন মৌলিক চাহিদার মধ্যে বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশের মানুষের অন্ন ও বস্ত্রের সমস্যা সমাধান অনেক আগেই করেছেন, এখন গৃহহীনদের মাথা গোঁজার জন্যও ঠাঁই করে দিচ্ছেন।

শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) সকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা অডিটরিয়ামে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়নের ঘর ও জমির দলিল, খতিয়ান, ডিসিআর ও সনদপত্র হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

এসময় তথ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন মানুষকে সেবা দিয়ে যাবে।

হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী মুজিববর্ষে গৃহহীনদের ঘর করে দেবার ঘোষণা দিয়েছিলেন। শুধু ঘোষণার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে তিনি তার রাষ্ট্রযন্ত্র ও দলকে কাজে লাগিয়ে হাজার হাজার ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন। একদিনে ৭০ হাজারের মতো ঘর উদ্বোধন করেছেন।

মন্ত্রী বলেন, সারাদেশে আজ (শনিবার, ২৩ জানুয়ারি) যারা ঘর পেয়েছে, তারা কখনও ভাবেনি জমির মালিকানাসহ দুই কক্ষের একটি ঘর তারা উপহার পাবেন অথচ এই অভাবনীয় কাজ জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা করেছেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমার জানা নেই পৃথিবীর অন্য কোন দেশে এভাবে একদিনে ৭০ হাজার পরিবারকে ঘর দেওয়া উদ্বোধন হয়েছে কিনা।

ড. হাছান এসময় ঘরদাতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নামটি স্মরণ রাখার জন্য উপকারভোগীদের অনুরোধ জানান।

এদিন রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়নে ৬৫ টি পরিবারকে ২ শতাংশ করে জমি ও দুই কক্ষ বিশিষ্ট ঘর গৃহহীনদের মাঝে বিতরণ করা হয়। এসময় উপকারভোগী ওয়াজিদ করিম ও কৃষ্ণ চৌধুরী তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করে স্থায়ী ঠিকানা করে দেবার জন্য তথ্যমন্ত্রীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) রাজিব চৌধুরীর সঞ্চালনায় দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, এডভোকেট আয়েশা আক্তার প্রমুখ।