বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভারতের দেওয়া করোনার টিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিএনপিসহ সমমনা রাজনৈতিক জোটের নেতারা। জাতীয় প্রেসক্লাবের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তারা বলেন, এই টিকার ওপর সাধারণ মানুষের কোনো আস্থা নেই। একইসাথে বেসরকারিভাবে এই টিকা আমদানির বিরোধিতা করে সাধারণ মানুষকে আস্থাশীল করতে প্রথমে প্রধানমন্ত্রীকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানান তারা।

স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে রোববার (২৪ জানুয়ারি) সকালে এ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাজনৈতিক সংগঠন নাগরিক ঐক্য। এই ডাকে সাড়া দিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ সরকারবিরোধী দল ও মতের নেতারা। অনুষ্ঠানে আলোচনার কেন্দ্রে ছিল ভারতের দেওয়া করোনার টিকা।

বেসরকারিভাবে টিকা আমদানির সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘বেসরকারিভাবে টিকা আমদানি করলে চরম ভুল করবে সরকার। নকল ও ভেজাল চলে আসবে বাজারে। বুড়িগঙ্গার পানি কিংবা মুরগির টিকা দিয়ে দেবে না তার কোনো গ্যারান্টি আপনাদের নাই। তাই টিকা নিয়ে মানুষের সংশয় দূর করতে প্রথমেই প্রধানমন্ত্রীকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

টিকার ওপর অনাস্থা প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ভারতের দেওয়া উপহারের টিকা নিয়ে সাধারণ মানুষের সন্দেহ আছে। সবার আগে প্রধানমন্ত্রী টিকা নিলে সাধারণ মানুষের সন্দেহ দূর হবে, মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী হবে। মানুষের আস্থা ফিরিয়ে এনে বিনামূল্যে এই টিকা দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ফখরুল বলেন, ভিআইপিসহ সম্মুখসারির করোনাযোদ্ধাদের তালিকা করা হলেও সাধারণ মানুষ কিভাবে এই টিকা পাবে, সেই রোডম্যাপ এখনো তৈরি করেনি সরকার।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম ও গণসংহতি আন্দোলনের নেতা জুনায়েদ সাকী। আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুর রহমান মান্না। আগামী এক বছরের মধ্যে গণঅভ্যুত্থানের পরিবেশ তৈরি করতে সব দলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।