বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পারমাণবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারে সহযোগিতার জন্য সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে কোরিয়া পরমাণু শক্তি গবেষণা ইনস্টিটিউট (কেএইআরআই) ও বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন (বিএইসি)।

বুধবার (২৪) ঢাকায় বিএইসি ভবনে এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কেএইআরআই’র প্রেসিডেন্ট ড. পার্ক ওয়ান সিওক, বিএইসি’র চেয়ারম্যান ড. মো: আজিজুল হক, বাংলাদেশে নিযুক্ত কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং-কেউন এবং বিএইসি ও কেএইআরআই’র অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সমঝোতা স্মারক অনুসারে, কেএইআরআই ও বিএইসি পারমাণবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা জোরদার করবে। যার মধ্যে রয়েছে গবেষণা চুল্লির উন্নয়ন, ব্যবহার ও আপগ্রেড, রেডিওআইসোটোপের উৎপাদন ও প্রয়োগ, বিকিরণ প্রযুক্তির বিকাশ, নিউট্রন বিজ্ঞান ও পারমাণবিক/তেজস্ক্রিয় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা।

কোরিয়ার প্রত্যাশা সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর দুটি সংস্থার মধ্যে বিদ্যমান সহযোগিতাকে একটি নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ গতি প্রদান করবে।

ড. পার্ক ওয়ান সিওক পারমাণবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারে বিশ্বস্ত অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা এবং শক্তিশালী করার বিষয়ে তার আস্থা প্রকাশ করেছেন।

রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং-কেউন জোর দিয়ে বলেন, আজ এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর কোরিয়া ও বাংলাদেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি তাৎপর্যপূর্ণ অর্থ বহন করে। কেননা এটি পারমাণবিক শক্তি ও বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সহযোগিতার একটি নতুন পথ খুলে দিয়েছে।

দুই দেশ আগামী বছর কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন করবে বলে মনে করিয়ে দিয়ে তিনি উল্লেখ করেন, উভয় দেশই বিগত দশকে আরএমজি, মানবসম্পদ উন্নয়ন, স্বাস্থ্য ও আইসিটি ক্ষেত্রে সাফল্যের ভিত্তিতে সহযোগিতার ক্ষেত্রকে বৈচিত্র্যময় করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

২৬ মে কেএইআরআই’র প্রতিনিধিদলের বাংলাদেশ ট্রেনিং রিসার্চ রিঅ্যাক্টর (বিটিআরআর) পরিদর্শন করার কথা রয়েছে।

Previous articleসোনারগাঁও পৌরসভায় চলাচলের প্রধান রাস্তাটি অল্প বৃষ্টিতেই বেহাল
Next articleসিংগাইর সিটি হাসপাতালে প্রসূতির মৃত্যু: লাইসেন্স না থাকায় সিলগালা, ১০ জনের কারাদণ্ড
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।