সুন্দরগঞ্জে শিক্ষককে মারপিটের প্রতিবাদে বিক্ষোভ, আটক ২

আবু বক্কর সিদ্দিক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর আলহাজ্ব তহুরুন নেছা (এটিএন) বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (বিএসসি-গণিত) আমজাদুল ইসলামকে প্রাইভেট পড়া নিয়ে মারপিটের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা। স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যাল সংলগ্ন চন্ডিপুর চৌরাস্তা মোড় নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। এসময় শিক্ষক তার কর্মস্থলে (বিদ্যালয়ে) যাবার পথে প্রতিপক্ষ চন্ডিপুর মাজারের ভিটা কমিউনিটি ক্লিনিকে দায়িত্বরত সিএইসসিপি হিজবুল্লাহ্ধসঢ়; ও তার লোকজন শিক্ষককে পথরোধ করে মারপিট করেন। এরই প্রতিবাদসহ অন্যায়কারীদের বিচারে দাবিতে শিক্ষার্থীরা তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করে। এঘটনার পর হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;র কর্মস্থল উক্ত কমিউনিটি ক্লিনিকে শিক্ষক আমজাদুল ইসলামের লোকজন হামলা করে। উপায়ন্ত না পেয়ে হিজবুল্লাহ্ধসঢ়; পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে শিক্ষকের লোকজন হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;কে পার্শ্ববর্তী ছয়ঘড়িয়া গ্রামের বাঁধের রাস্তার ভাঙ্গামোড় নামক স্থানে মারপিট করে। এসময় স্থানীয়রা পরিস্থিতি বেগতিক দেখে হামলাকারী শিক্ষক আমজাদুল ইসলামের পক্ষের রায়হান ও শহীন মিয়া নামে ২ জনকে আটক করে। খবর পেয়ে কঞ্চিবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ঘটনাস্থলে পৌঁছে আটক রায়হান ও শাহীন মিয়াকে উদ্ধার করেন। এঘটনায় আহত শিক্ষক আমজাদুল ইসলামকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে ও সিএইসসিপি হিজবুল্লাহ্ধসঢ়; সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। স্থানীয়রা আরও জানান, শিক্ষার্থীদেরকে পরিক্ষায় ফেল করে দেয়ার ভয় দেখিয়ে তার নিজের কাছে প্রাইভেট পড়ার জন্য শিক্ষার্থীদেরকে বাধ্য করিয়ে থাকেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক। এদিকে, হিজবুল্লাহ্ধসঢ়; একটি কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত হলেও উক্ত স্কুলের পাশে চন্ডিপুর কনসেপ্ট কোচিং পরিচালনা করেন। শিক্ষার্থীরা তাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষক আমজাদুল ইসলামের নিকট প্রাইভেট পড়ায় হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;র পরিচালিত কোচিংয়ে ভাটা পড়ে। এরই জের ধরে এঘটনার সূত্রপাতঘটে। এব্যাপারে শিক্ষক আমজাদুল ইসলামের সঙ্গে বিভিন্নভাবে কথা বলার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি। পক্ষান্তরে, কোচিং পরিচালক (সিএইসসিপি) হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;র ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া না গেলেও তার স্ত্রী জামনা বেগম বলেন তার স্বামী (হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;) অসুস্থ্য থাকায় তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে তাই তিনি কথা বলতে পারবেন না। হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;র শ্যালক বলেন রায়হান চিলমারী উপজেলা শিক্ষা অফিসে উচ্চমান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক পদে চাকরি করে। রায়হান ও শাহীন মিয়াসহ ১০-১৫ জন শিক্ষক আমজাদুল ইসলামের ভাড়াটে হিসাবে তার ভগ্নিপতি হিজবুল্লাহ্ধসঢ়;কে আক্রমন করে মারপিটের পর গুরুতর আহত করেছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক বলেন স্কুলে আসার সময় চন্ডিপুর মোড়ে পোঁছিলে সহকারী শিক্ষক আমজাদুল ইসলামকে হিজবুল্লাহ্ধসঢ়; ও তার লোকজন মারপিট করে। এতে আহত সহকারী শিক্ষককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরই প্রতিবাদে তাৎক্ষণিতভাবে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করে। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক মেহেদী মোস্তাফা মাসুম ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, বিষয়টি মিমাংসার পর্যায়ে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। কঞ্চিবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ, পুলিশ পরিদর্শক মোখলেছুর রহমান জানান, ঘটনার পর জনতার হাতে আটক রায়হান ও শাহীন মিয়া নামে ২ ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। এনিয়ে কোন পক্ষের কোন প্রকার লিখিত অভিযোগ পাওয়া আসেনি। সার্বিক পরিস্থতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। থানা অফিসার ইনচার্জ- আব্দুল্লাহিল জামান জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনার সময় জনতার হাতে আটক রায়হান ও শাহীন মিয়া নামে ২ ব্যক্তিকে হেফজতে রাখা হয়েছে। কোন পক্ষের লিখিত অভিযোগ আসেনি।