জয়পুরহাটে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৪ জন করোনা রোগী

শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাটে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন চার জন করোনা রোগী, গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশন ইউনিটে থাকা করোনায় আক্রান্ত চার রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

রোববার দুপুরের দিকে গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশন ইউনিট চত্তরে স্বাস্থ্য বিভাগ ও হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি এর পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া ও ফল-মূলের প্যাকেট, ফুল ছিটিয়ে করোনামুক্ত চার রোগীকে ছাড়পত্র এবং এই উপহারগুলো তুলে দেওয়া হয়।
ছাড়পত্র দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিম মিঞা, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তুলসী চন্দ্র, আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রাধেশ্যাম আগরওয়ালা ও পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ও গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডাঃ রাফসান জানি, গোপীনাথপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ জোয়ারদার ও স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশন ইউনিটের ইনচার্জ আতিকুর রহমান জানান, ১৬ এপ্রিল নারায়নগঞ্জ ফেরত কালাই উপজেলার জিন্দারপুর গ্রামের দুই সবজি ব্যবসায়ীর শরীরে প্রথম করোনাভাইরাস সনাক্ত হয় এছাড়াও ২০ এপ্রিল পাঁচবিবি উপজেলার ছোট মানিক এলাকার নারায়নগঞ্জ ফেরত একটি বায়িং হাউজে কর্মরত ৩৩ বছরের এক যুবকের কোন উপসর্গ না থাকলেও করোনা পজিটিভ ও ২১ এপ্রিল একই উপজেলার পূর্ব কড়িয়া বটতলী এলাকার নারায়নগঞ্জ ফেরত ৪৩ বছরের এক ব্যক্তির করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়েছে। এদের সবাইকে করোনা সনাক্তের পর গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি আইসোলেশন ইউনিট কেন্দ্রে আনা হয়। প্রায় এক মাস চিকিৎসা দেওয়ার পর তাদেরকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়।
পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ও গোপীনাথপুর ইন্সটিটিউট অব হেলথ
কনোলজি প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডাঃ রাফসান জানি বলেন, করোনা যেহেতু প্রথম একটি রোগ সেহেতু আমরা উপসর্গ (জ্বর,গলাব্যথা,সর্দি) ভিত্তিক রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে, প্রথমে রোগীকে ভয় পেয়ে গিয়েছিল,আমরা রোগীদের মানসিকভাবে মনোবল শক্ত রাখতে চেষ্টা করেছি। এতেই ভালো ফল হয়েছে।

জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিম মিঞা জানান, চার জনকে ছাড়পত্র দিয়ে বাড়ি পাঠানো হয়েছে। তাদের প্রথম নমুনা পরীক্ষায় চারজনের পজিটিভ এসেছিল। তাই তাদেরকে আইসোলেশনে আনা হয়েছিল। পরে দুই দফায় নমুনা পরীক্ষায় তাদের নেগেটিভ আসে।