আব্দুল লতিফ তালুকদার: টাঙ্গাইলে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরকীয়া করতে এসে হাতেনাতে ধরা পড়ল আনোয়ার হোসেন নামে এসএসএস এনজিও’র এক কর্মী। আনোয়ার হোসেন জেলার ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল গ্রামের মৃত আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে। গত শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার দাইন্যা ইউনিয়নের ভাসার চর এলাকায় এক প্রবাসীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া অনৈতিক অবস্থায় ধরা পড়ে আনোয়ার গণপিটুনির স্বীকার হয়। এ বিষয় নিয়ে গেল শনিবার মীমাংসা করার জন্য দফায় দফায় বৈঠক হয়। মীমাংসায় মাতাব্বররা বিভিন্ন অপরাধ দিয়ে দুই বাচ্চার জননীকে কাজী দিয়ে তালাক ব্যবস্থা করে এলাকা ছাড়ার ঘোষণা তারা। ঘোষণার পর পরই প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে থাকা স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নেন তার শ্বশুর-শাশুড়ি। মীমাংসা শেষে এনজিও কর্মী আনোয়ারকে ছেড়ে দেয়া হয় উপস্থিত মাতাব্বররা। এ ঘটনায় দাইন্যা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য বাবুল মন্ডল বলেন, আপত্তিকর অবস্থায় ওই নারী ধরা পরায় তাকে এলাকাবাসী নানাভাবে নাজেহাল করতে থাকে। এছাড়া তাকে ন্যাড়া করার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে থানা পুলিশদের অবহিত করি। পুলিশ ঘটনাস্থলে না আসায় পরিস্থিতি খারাপ হয়। এরপর সকলের সম্মতিতে এলাকাবাসী মীমাংসা করার জন্য বসে। মীমাংসায় ওই নারীর সম্মতিক্রমে তালাক নামায় স্বাক্ষর নেয়া হয়। তারপর তাকে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়। এ বিষয়ে সদর উপজেলার দাইন্যা ইউনিয়নের এসএসএস এনজিও শাখা ব্যবস্থাপক মাহবুব হোসেন বলেন, আনোয়ার হোসেন বাসায় যাওয়ার কথা বলে ছুটি নেয়। তারপর অনৈতিক কর্মকা-ে জড়িয়ে পরে। সে যে অপরাধ করেছে এটা তার ব্যক্তিগত বিষয়, এতে আমাদের কিছুই করার নেই।

Previous articleরায়পুরে ১৫০ বছরের পুরোনো মসজিদ ডিজিটাল রুপান্তরে নির্মান শুরু
Next articleমুলাদীতে ফসলি জমির মধ্য দিয়ে জোড়পূর্বক রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।