আব্দুল লতিফ তালুকদার: বঙ্গবন্ধু সেতুতে শনিবার রাত ৩ টার দিকে সেতুর ১৯ নম্বর পিয়ারের কাছে একটি যাত্রীবাহী বাস ও ম্যাক্স গাড়ির সংঘর্ষে ২ জন নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে আহত হওয়া ৭ জনকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতরা হলেন- নীলফামারী জেলার ডিমলা থানার মজনু (৩৩) ও একই উপজেলার রমজান আলীর ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৪)।

এদিকে, সেতুর মাঝখানে দুর্ঘটনার কারণে উত্তরবঙ্গগামী লেনে প্রায় ১ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিলো। এতে ঢাকামুখী লেনে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, ঢাকাগামী একটি ম্যাক্স গাড়ি (কাঁকড়া গাড়ি) সেতুর ১৯ নম্বর পিয়ারের কাছে পৌঁছলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এ সময় পেছন থেকে শ্যামলী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস এসে সজোরে ধাক্কা দিলে ম্যাক্স গাড়িটিতে আগুন ধরে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে। পরে পুলিশ সেখান থেকে ২ জনের মরদেহ উদ্ধার করে এবং ৭ জনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহতদের মরদেহ সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সেতুর মাঝখানে দুর্ঘটনার কারণে উত্তরবঙ্গগামী লেন প্রায় ১ ঘণ্টা বন্ধ ছিল। এ কারণে এ মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত যানবাহন দু’টি রেকার দিয়ে অপসারণ করার পর গাড়ি চলাচল শুরু হয়। তবে এখনও যানজট রয়েছে। যানজটের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা।

বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, রাতে বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর আগুন লাগার ঘটনার পর থেকেই মহাসড়কে থেমে থেমে গাড়ি চলছে। সকালের পর কিছুটা গাড়ির চাপ কিছুটা কমলেও ঢাকাগামী লেনে পরিবহনের চাপ অনেক বেশি রয়েছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে যানচলাচল স্বাভাবিক হতে পারে ।

Previous article‘এল এ চেক’ বিতরণ শুরু করেছে রংপুর জেলা প্রশাসন
Next articleভূঞাপুরে তিলক্ষেত থেকে যুবকের গলিত লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।