বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে যৌতুক মামলা তুলে নিতে অস্বীকার করায় স্ত্রীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাবুগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম ভুতেরদিয়া গ্রামের মৃত ফরিদ উদ্দীন মল্লিকের ছেলে সাইফুল ইসলাম সোহাগ তার স্ত্রী নার্গিস বেগমকে হত্যাচেষ্টা করেন।

গত শুক্রবার বেলা ১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। নার্গিস বেগম মুলাদী উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের বড়ইয়া কাজিরচর গ্রামের মৃত তোফায়েল হাওলাদারের মেয়ে। গত মার্চ মাসে সোহাগের সাথে তার বিয়ে হয়। নার্গিস বেগম জানান, বিয়ের পর থেকে সোহাগ বিভিন্ন সময় সোয়া লক্ষ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ ২ লক্ষাধিক টাকা যৌতুক নেন। গত জুলাই মাসে সোহাগ ইয়াবা ব্যবসার জন্য তার কাছে আবার ২ লাখ টাকা চায়। তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করলে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। ওই ঘটনায় নার্গিস বেগম বাদী হয়ে ১৫ জুলাই বরিশাল নারী নির্যাতন দমন আদালতে মামলা করেন। পরবর্তীতে নার্গিস বেগম ঢাকার আশুয়ালিয়া জামগরা এলাকায় ভার্চুয়াল পোশাক কারখানায় কাজ শুরু করেন। সাইফুল ইসলাম সোহাগ ঢাকায় গিয়ে তার স্ত্রীকে মামলা তুলে নিতে চাপ দেন। কিন্তু স্ত্রী মামলা তুলে নিতে অস্বীকার করেন। গত শুক্রবার বেলা ১টার দিকে সোহাগ সুকৌশলে স্ত্রীকে আশুলিয়ার জলপই বাগান এলাকায় তাঁর বোনের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে তাকে আটকে রেখে সোহাগ, তার ভগ্নিপতি হাবিবুর রহমান, আগের স্ত্রীর পুত্র সিফাত মল্লিক, বোন মেরিনা মারধর করে নার্গিসের কাছ থেকে সাদা স্টাম্পে স্বাক্ষর নেন। স্থানীয়দের সহায়তায় নার্গিস বেগম সেখানে থেকে ছাড়া পেয়ে রাতেই লঞ্চে বাড়ি চলে আসেন। এই ঘটনায় তিনি বরিশাল আদালতে আরও একটি মামলা করবেন বলে জানান। এব্যাপারে সাইফুল ইসলাম সোহাগের সাথে ০১৮০৮১২০২৩ নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করলে মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

Previous articleনোয়াখালীকে ভিক্ষুকমুক্ত করতে ৬৯ জন দুস্থ-প্রতিবন্ধী ভিক্ষুককে পুনর্বাসন
Next articleবঙ্গবন্ধু পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ঈশ্বরদীর কৃত্বি সন্তান ডাক্তার সাহেদ ইমরান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।