শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
Homeসারাবাংলাচাঁদা আদায়ের অভিযোগে ভোমরা স্থলবন্দরে ৩ ঘন্টা বন্ধ ছিল আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম

চাঁদা আদায়ের অভিযোগে ভোমরা স্থলবন্দরে ৩ ঘন্টা বন্ধ ছিল আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম

মাহমুদুল হাসান: ভারতীয় আমদানিজাত পণ্যবাহী ট্রাকে চাঁদাবাজির প্রতিবাদে প্রায় ৩ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর সাতক্ষীরার ভোমরা বন্দরে পুনরায় আমদানি-রপ্তানি শুরু হয়েছে। চলতি মাসের শুরু থেকে ভোমরা সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে ট্রাক প্রতি ২০০ টাকা হারে চাঁদা আদায় করা হচ্ছিল। এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার (২১ জুন) সকাল ১০টা থেকে ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভাররা বন্দরের জিরো পয়েন্টে পণ্যবাহী ট্রাক আড় করে দিয়ে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।

ভোমরা স্থল বন্দর আমদানিকারক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মোশারফ হোসেন জানান, চলতি মাসের প্রথম দিকে ভোমরা সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ভারতীয় ট্রাক প্রতি ২০০ রুপি হারে চাঁদা আদায়ের সিদ্ধান্ত নিলে ভারতের ঘোজাডাঙ্গা রপ্তানিকারক ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন এ তীব্র প্রতিবাদ জানায়। এরপর ৮ জুন থেকে চাঁদা আদায় বন্ধ ছিল। কিন্তু আজ সকাল ১০টায় হঠাৎ ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক প্রতি ২০০ রুপি হারে চাঁদা আদায় শুরু করলে উভয় দেশের আমদানি-রপ্তানিকারকদের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এ কারণে ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভাররা জিরো পয়েন্টে পণ্যবাহী ট্রাক আড় করে দিয়ে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। প্রায় তিন ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর চাঁদা না নেয়ার শর্তে আবারো আমাদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু করে তারা।

ভোমরা স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম জানান, কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের নামে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক প্রতি ২০০ রুপি হারে চাঁদা আদায় শুরু করলে আমদানিকারকরা আমদানি- রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। পরে চাঁদা না নেয়ার শর্তে আবারো শুরু হয় বন্ধরের স্বাভাবিক কার্যক্রম।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments