জয়নাল আবেদীন: বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ আর কোনদিন অন্ধকারে যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, জনগণ বিশ্বাস করে শেখ হাসিনার বিকল্প কিছু নেই। যতদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেঁচে থাকবেন ততদিন বাংলাদেশ আকাশ বাতাস সবই ভালো থাকবে। আলোকিত হয়েই দেশ এগিয়ে যাবে।বাংলাদেশের মানুষ আর কোনদিন অন্ধকারে যাবে না। দেশের মানুষ আর কোনদিন সন্ত্রাস জঙ্গিবাদে সমর্থন দিবে না। এখন পৃথিবীর বহুদেশে বাংলাদেশের সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ দমনের প্রসংশা করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার গড্ডিমারী ইউনিয়নের তিস্তা ব্যারেজ সংলগ্ন দোয়ানী এলাকার চরে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-১৩ (র‍্যাব) আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রায় ছয় হাজার গরীব, দুস্থ ও অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন,আমাদের চ্যালেঞ্জ অনেক।আজকে আমরা সব চ্যালেঞ্জকে অতিক্রম করে একটা সুন্দর পরিস্থিতিতে এসেছি। আমাদের আইন শৃঙ্খলাবাহিনী ও দক্ষ প্রশাসন তাদের অভিজ্ঞতা সাহসিকতা ও দেশপ্রেম দিয়ে জনসেবা করছেন।

তিনি বলেন, র‍্যাব শুধু জঙ্গি দমন করে না। যখন যা প্রয়োজন র‍্যাব স্বশরীরে মানুষের কাতারে সেবা দেয়ার জন্য চলে আসেন। র‍্যাব শুধু এলিট ফোর্স নয়, তারা জনগণের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের হৃদয় জয় করেছে র‍্যাব। জনগণের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। সেখানে র‍্যাব বাহিনীর প্রশংসা সবার মুখে মুখেস্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষতা, দূরদর্শিতা, নেতৃত্ব এবং তার তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের সক্ষমতার কারণে আমরা ভালো আছি। এদেশের জনগণ আর কোনদিন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসের মদতদাতাদের আশ্রয় প্রশ্রয় ও সমর্থন দিবে না। দেশের মানুষ এখন যখনই কোন দুর্যোগ আসে, সমস্যা সংকট দেখা দেয় তখনই সবাই একসঙ্গে ঘুরে দাঁড়ায়। দেশের মানুষের জন্য যখন যা প্রয়োজন, প্রধানমন্ত্রী কখনো তা করতে না করেননি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে নো বলে কোন শব্দ নেই।

আসাদুজ্জামান খান আরও বলেন, তিস্তায় অনেক সমস্যা, পানি প্রবাহ নেই। কিন্তু তিস্তায় পানি প্রবাহ না থাকলেও ফসল যাতে হয় সেদিকে প্রধানমন্ত্রীর খেয়াল রয়েছে। তিস্তা নির্ভর এই অঞ্চলে ফসল উৎপাদনে যা যা করণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা করে যাচ্ছেন। আমরা মনে করি এখানকার মানুষজন আরো এগিয়ে যাবে। এখানকার নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে, নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হওয়ায় সবক্ষেত্রে সমান অংশ গ্রহণ নিশ্চিত হয়েছে। এখন যত ষড়যন্ত্রই হোক আমাদের দুর্বার এই গতি কেউ আটকাতে পারবে না। কারণ দেশের মানুষ আর অন্ধকারে ফিরতে চান না।

এসময় সীমান্তবর্তী ভারতের বিভিন্ন এলাকায় মুক্তিযুদ্ধের সময় শহীদ হওয়া বাংলাদেশের বীর যোদ্ধাদের করব ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা চলছে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, লালমনিরহাট -১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন, র‍্যাব ফোর্সেস এর মহাপরিচালক অতিরিক্ত আইজিপি এম খুরশীদ হোসেন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপস্) কর্ণেল কামরুল হাসান, রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার নুরেআলম মিনা, র‍্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার আরাফাত ইসলাম প্রমুখ।

এছাড়াও লালমনিরহাট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান, লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক টিএমএ মুমিন, রংপুর বিভাগ ও লালমনিরহাট জেলার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Previous articleবগুড়ায় বকশিশের টাকা নিয়ে সচিব-নাইটগার্ডের মারামা‌রি
Next article‘আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে পতন করতে হবে’
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।