ফজলুর রহমান: মশলা জাতীয় হলুদের চাষে দিন দিন আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের। বাজার মূল্য বেশি থাকায় চাষিদের মধ্যে এ মশলা জাতীয় হলুদ চাষে আগ্রহ বেড়েই চলেছে। সোমবার (২২ফেব্রুয়ারি) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার বন্যামুক্ত উঁচু এলাকার জমিতে এই মশলা জাতীয় কৃষিজাত পণ্য হলুদ চাষ করেন কৃষকরা। তাম্বুলপুর ইউনিয়নের চরতাম্বুলপুর গ্রামের হলুদ বাগান সবুজ গাছে মাঠ পরিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তাম্বুলপুর ইউনিয়নের হলুদ চাষী ও ইউপি সদস্য আঙ্গুর আলম জানান, হলুদ চাষে পোকা থেকে মুক্ত থাকতে পারলে অনেক লাভ হয়। যার কারণে এ উপজেলায় হলুদ চাষের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী হলুদ পচা রোগ, কচিডগা পোকার আক্রমণের জন্য নিয়মিত ওষুধ দিতে হবে। পানি যাতে জমে না থাকে, তাই পানি নিস্কাশনে নালা দিতে হবে। রোগের ওষুধ হিসেবে দানা কোস্টার, ও তরল টিল্ট, ব্যবহার করলে ভালো ফলন পাওয়া যাবে। রহমতচর গ্রামের হলুদ চাষী কাবিল বসুনিয়া বলেন, বেশ কয়েক বছর থেকে হলুদ চাষ করছি। নিয়মিত পরিচর্যা ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবারে ফলন ভালো হয়েছে। ফলন ভালো হলে উৎপাদন খরচ বাদে লাভও ভালো হয়। আমার দেখি এলাকায় এবারে অনেকে হলুদ চাষ করছেন। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা লোকমান আলম এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, হলুদ রোপনের খরচ কম লাভ বেশি। হলুদ চাষ সময় কাল নয় মাস। তিনি আরও বলেন, হলুদ ক্যান্সার রোধক, হজম ভালো করে। এছাড়া ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে, তক মসৃন হয়, রূপচর্চায় কার্যকরী ভূমিকা রাখে। পীরগাছা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামিমুর রহমান বলেন, এবারে হলুদ চাষ হয়েছে ৯০ হেক্টর জমিতে। উপজেলায় কৃষকের মশলা জাতীয় ফসলের চাষের আগ্রহ আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় হলুদের ফলন ভালো হয়েছে বলে মনে করছি।

Previous articleসোনারগাঁওয়ে কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে খাস জমি দখলের চেষ্টা
Next articleসাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার বিচারের দাবীতে মাদারীপুরের রাজৈরে মানববন্ধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।