আব্দুল লতিফ তালুকদার: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর পৌরসভা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় কুতুবপুর গ্রামে ১৬ বাড়ী ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। গত শনিবার রাতে পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বিজয়ী কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম ও তার সমর্থকদের বাড়ী-ঘর ভাঙচুর করা হয়। স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের পক্ষে জাল ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থী জাহিদুল ইসলামের সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। সংঘর্ষে কাউন্সিলর প্রার্থী জাহিদের সমর্থক সমলা বেগম ওরফে সূচী বেগমের হাতের বুড়ো আঙ্গুল দায়ের কোপে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বর্তমানে সে ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে ফলাফল প্রকাশের পর রাতে বিজয়ী কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে তার লোকজন পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী জাহিদুল ও তার সমর্থক আজহার, শামছুল, জলিল, মান্নান, সাদেক, আমজাদ, আনোয়ার, শহীদুজ্জামান, শামছুজ্জামান, সাইফুল, সবুর, মোমেন, করিম মেম্বার, ইসরাইল ও সাত্তারের বাড়িতে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। সংবাদ পেয়ে পুুলিশ ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এবিষয়ে ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো রাশিদুল ইসলাম জানান, পৌর নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় কুতুবপুর গ্রামে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। নতুন করে সহিংসতা এড়াতে ওই গ্রামে পুলিশ টহল অব্যাহত রয়েছে। অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Previous articleরাজারহাটে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৫
Next articleসুন্দরগঞ্জে টয়লেট থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার, মা গ্রেপ্তার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।