জয়নাল আবেদীন: রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেছেন সিটি বাজারের একটি দোকানের মাত্র ৯০টাকা মাসিক ভাড়া আর সেই অর্থ বকেয়া থাকতে থাকতে ৮০লাখ টাকা দাঁড়িয়েছে ।

দোকানের সামনে পথচারির যাতায়াতের স্থানগুলো বাবসায়ি সমিতির নেতারা দখল করে লাখ লাখ টাকা ভাড়া দিয়ে অবৈধ অর্থের পাহাড় গড়ার স্বপ্ন ভেঙ্গে দেয়ার প্রস্তুতিকালে ব্যবসায়িরা নিজেদের সকল অপকর্ম ঢাকা জন্য সিটি বাজার ধর্মঘট করে নগরবাসীকে দুর্ভোগে ফেলেছিলেন । তাদের সকল অপকর্ম ফাঁস করা হয় দ্রæত আইনী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে ।

রংপুর সিটি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি ডাকা ধর্মঘটের প্রেক্ষিতে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার দুপুরে রসিক হল রুমে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। মেয়র বলেন, রসিক ৪.১৬ একর জমির উপরে সিটি বাজার প্রতিষ্ঠিত। এখানে ছোট বড় মিলিয়ে ১ হাজার ১শ১২ টি দোকান রয়েছে। যার প্রতিটি দোকানের ভাড়া মাত্র ৯০ টাকা থেকে শুরু করে ৬শ৭৫ টাকা ভাড়া পায় সিটি কর্পোরেশন। নগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অবস্থিত এই বাজারের দোকানগুলোর ভাড়া এত কম যা সত্যি অবিশ^াস্য। এছাড়া ২০১৮ থেকে ২০২২ অর্থ বছওে সিটি বাজার, সিটি বাজার সাইকেল স্টান্ড ও গণ শৌচাগার ইজারা হতে আয় প্রায় ২ কোটি ২৯ লক্ষ টাকা। এর বিপরিতে কঞ্জারভেন্সি শাখা, বিদ্যুশাখা ও প্রকৌশল শাখা হতে উন্নয়নমুলক কাজে মোট ব্যয় প্রায় ২ কোটি ৬৯ লক্ষ টাকা। যা ব্যয়ের হার ১১৭.৩৮ ভাগ। যেখানে সরকার নির্ধারিত ব্যয়ের পরিমাণ মাত্র ৪৫%। তাসত্বেও সিটি বাজার উন্নয়নে পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। গণশৌচাগার নির্মাণের কাজ শুর হলে সমিতির নেতৃবৃন্দ নকশা মনঃপুতহয়নি মর্মে কাজ বন্দ করে দেয়। পওে তাদের দাবী অনুয়ায়ী নতুন নকশায় কাজ চলমান রয়েছে যার ব্যয় ৬৩ লক্ষ টাকা।

এছাড়া পানি নিস্কাশনের জন্য ৮৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে শ্রেন ও ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকায় ফুটওভার ব্রিজনির্মাণ হচ্ছে।তিনি বলেন ২০১৩ সালে সর্বশেষ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছিল । সিটি কর্পোরেশনের আইনে ৩ বছর পরপর ভাড়াবৃদ্ধি করা হলেও ভাড়া বাড়ানো হয়নি । তিনি বলেন পাশাপাশি নুন্যতম ভাড়া চলমান থাকলেও বর্তমান সিটি বাজারে বকেয়া ও পরিমান আশি লাখ পাঁচ হাজার টাকা ।এত কিছু সুবিধার দেয়ার পরেও সিটি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি ষড়যন্ত্রমুলক ও উদ্দেশ্য মুলকভাবে ধর্মঘট পালন করে ১৯ জানুযারী। তিনি আরও বলেন অনিয়মের স্বর্গরার্জে সিটিবাজার ব্যবসায়ী সমিতি । মেয়র আক্ষেপ করে বলেন রংপুর সিটিতে শুধু মাত্র একজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অভাবে সকল ভ্রাম্যমান আদালত , উচ্ছেদ র্কাযক্রম পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছেনা । তিনি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের নিকট দ্রæত ম্যাজিষ্ট্রেট প্রদানের দাবি জানান ।

এসময় প্যানেল মেয়র টিটু বলেন বর্তমানে ম্যাজিষ্ট্রেট অভাবে মেয়র সহ আমরা সবাই অসহায় বোধ করছি । এছাড়াও নগরির নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে জেলাও মেট্রোপলিটন পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে খুব শিগগির সিটি বাজারের উচ্ছেদ অভিযান করা হবে । সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- রসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মিঞা, প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু, তত্বাবধায় প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেকেন্দার আলী, ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম , ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুনতাছীর শামীম লাইকো,কাউন্সিলর মাহবুবার রহমান মন্জু প্রমূখ।

Previous articleমুলাদীতে ড্রেজার পুড়িয়ে ও জব্দ করেও বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ বালু উত্তোলন
Next articleতাহিরপুরে ইউপি নির্বাচনে আচরণ বিধি লঙ্ঘন, দুই প্রার্থীকে জরিমানা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।